ডোমেইন কি ? ডোমেইনের প্রকার এবং ব্যবহার – (Domain)

ডোমেইন কি

আজকে আমি আপনাদের সাথে কথা বলবো, ডোমেইন কি? ডোমেইন কিনতে খরচ কত? আপনারা যারা ডোমেইন সম্পর্কে জানেন এবং ডোমেইন এর বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য জানতে চান তাদের জন্য আমার এই আর্টিকেলটি তৈরি করা হয়েছে।

ডোমেইন কি
What is domain in Bangla

আমি ডোমেইন এর বিষয়ে সম্পূর্ণটা জানানোর চেষ্টা করব। যখন আমরা ইন্টারনেটের কোন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করি তখন আমরা ওয়েব ব্রাউজার (Web browser) এর উপরে এড্রেসবার (address bar) এ যে ইউআরএল (URL) বা নামটি দেখতে পাই সেটি হল ডোমেইন নেম।

ডোমেইন নেম এর সাহায্যে আমরা ইন্টারনেটের যে কোন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারি।

আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করতে চান, তাহলে আপনাকে অবশ্যই একটি ডোমেইন নেম ক্রয় করতে হবে।

তাই সবার আগে আপনাকে জানতে হবে ডোমেইন নেম কি বা ডোমেইন নেম কাকে বলে?

আসলে Domain name একটি ওয়েবসাইটের ঠিকানা (address) প্রদান করে।

যেমন, বাড়ির address এর মাধ্যমে একটি বাড়িকে সহজেই খুঁজে পাওয়া যায়, তেমন ডোমেইন নেম এর মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইটকে সহজেই খুজে পাওয়া যায়।

যেমন, আমার এই ওয়েবসাইটের ডোমেইন নেম হলো banglatrick24.com

এখন আপনি যদি আমার এই ওয়েবসাইটে আসতে চান তাহলে আপনার web browser এর address barbanglatrick24.com এই domain name টাইপ করতে হবে।

সহজভাবে বলতে গেলে, একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগের নাম, ঠিকানা এবং পরিচয় হলো ওয়েবসাইটের ডোমেইন নেম।

আসলে ডোমেইন নেম কি এ বিষয়ে আপনার ধারণা রয়েছে।

যেহেতু আপনি আমার ডোমেইন কি? ডোমেইন কিনতে খরচ কত? এই আর্টিকেলটি পড়তে এসেছেন।

তারপরেও আমি ডোমেইন এর বিষয়ে সব কিছু আপনাদের বলতে চেষ্টা করবো। যেমন, টপ লেভেল ডোমেইন কি, জেনেরিক ডোমেইন কি, ডোমেইন কত প্রকার, ডোমেইন কিনতে খরচ এবং ডোমেইন কিভাবে কিনব?

ডোমেইন কি (What is domain)

ডোমেইন নেম হলো ওয়েবসাইটের একটি এড্রেস (address) যার মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটকে খুঁজে পাওয়া যাবে।

যেমন, উদাহরণ হিসেবে banglatrick24.com হলো একটি ডোমেইন নেম। আবার ডোমেইন নেম এর মত IP Address দিয়ে ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা যায়। ইন্টারনেটে থাকা সকল ওয়েবসাইটের একটি নির্দিষ্ট IP Address  রয়েছে।

এই আইপি অ্যাড্রেস হলো অনেকটা এরকম যে, 163.316.222.238

এটা আমি শুধু একটি উদাহরণ হিসেবে দিয়েছি। যেমন google.com এর আইপি অ্যাড্রেস 172.217.168.238

এখনgoogle.com না লিখে যদি এই আইপি এড্রেসটি লেখা হয় তারপরও google এ প্রবেশ করা যাবে।

IP Address বা Internet Protocol Address এমন একটি ঠিকানা এটি ওয়েবসাইটটি ইন্টারনেটের কোন সার্ভারে (server) হোস্ট (host) করা রয়েছে তার ইন্টারনেট ব্রাউজার যেমন (অপেরা, ফায়ারফক্স, ক্রোম) কে বলে দেয়।

ফলে আমরা ওয়েব ব্রাউজার এ টাইপ করা ওয়েব সাইটটিতে প্রবেশ করতে পারি।

আর যদি ডোমেইন নেম এর বদলে আইপি এড্রেস ব্যবহার করা হয় তাহলেও সেই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারব।

আসলে এই আইপি অ্যাড্রেস সাধারণত মনে রাখার যোগ্য নয় এবং যেটা সহজে মনে রাখা যায় না।

আর এজন্য এর পরিবর্তে একটি সহজ ডোমেইন নেম ব্যবহার করা হয়।

Domain ইংরেজি শব্দ এর অর্থ হলো জায়গায় বা স্থান ডোমেইন নেম ছাড়া কখনই কোন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা যাবে না।

ডোমেইন কাকে বলে?

ডোমেইন একটি ওয়েবসাইটকে তার hosted সার্ভার (server) এর আইপি ঠিকানার (IP Address) এর সাথে point করে। যার মাধ্যমে আমরা web browser এর address bar এ কোন ওয়েবসাইটের ডোমেইন নেম লিখে search করলে সেই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারি।

আর এই ডোমেইন নেম IP Address এর তুলনায় অনেক সহজেই মনে রাখা যায়।

যেমন, https://www.google.com

এখানে https:// হলো protocol, www. (World Wide Web) হলো host name, google হলো ডোমেইন নেম এবং .com হলো ডোমেইন Extension.

এখন আপনারা ডোমেইন কিভাবে কাজ করে বা ডোমেইনের কাজ কি এ বিষয়ে ভালো ধারণা পেয়ে গেছেন।

একটি ওয়েবসাইট তৈরির কথা আসলে প্রথমেই প্রয়োজন একটি ডোমেইন নেম।

ডোমেইন নেম এ সর্বনিম্ন ৩ টি অক্ষর এবং সর্বোচ্চ ৬৩ টি অক্ষর থাকা আবশ্যক।

ডোমেইন কত প্রকার?

ডোমেইন অনেক ধরনের রয়েছে। নিচে আমি ডোমেইনের প্রকারের বিষয়ে কথা বলবো।

ওয়েবসাইট তৈরি করতে হলে এই ডোমেইন নেম ব্যবহার করা অধিক গুরুত্বপূর্ণ।

TLD বা Top Lavel Domain

TLD বা Top Lavel Domain Extension হলো খুব ভালো মানের Domain Extention.

ইন্টারনেটে যত ওয়েবসাইট রয়েছে তার মধ্যে এই Domain Extension গুলো বহুল ব্যবহৃত Domain Extention.

যেমন আমার ব্লগ হলো banglatrick24.com

এখানে .com হলো একটি Top Lavel Domain Extension.

একটি brand গড়ে তোলার জন্য Top Lavel Domain এর ব্যবহার করা খুবই জরুরি।

তাছাড়া, TLD ডোমেইন মানুষের কাছে অধিক জনপ্রিয় এবং এই Domain Extension কে Search Engine অনেক গুরুত্ব দিয়ে থাকে।

একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগের জন্য Top Lavel Domain কেনা জরুরি।

কয়েকটি Top Lavel Domain এর উদাহরণ হলো,

  • .com
  • .net
  • .org
  • .info
  • .biz
  • .gov
  • .edu

এসব ডোমেইন নেম আপনি টাকা দিয়ে Domain Provider এর কাছ থেকে কিনতে পারবেন।

CcTLD বা Country Code Top Lavel Domain

CcTLD Domain কোন একটি নির্দিষ্ট দেশের জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

কয়েকটি CcTLD Domain এর উদাহরণ হলো,

  • .bd
  • .in
  • .uk
  • .us
  • .cn

এছাড়াও আরও অনেক CcTLD ডোমেইন extension রয়েছে।

gTLD বা জেনেরিক টপ লেভেল ডোমেইন

Generic Top Lavel Domain যেগুলো সকল দেশেই ব্যবহার করা হয় অর্থাৎ সকল দেশের জন্য প্রযোজ্য ডোমেইন নাম। যেমন .com .net .info .org হলো জেনেরিক টপ লেভেল ডোমেইন।

SLD বা Sub Lavel Domain

সাব ডোমেইন কি? সাবডোমেইন হলো মেইন ডোমেইন নেমের আগে আরেকটি নেম যুক্ত থাকে।

যেমন, account.google.com, bn.wikipidia.org এগুলো হলো সাবডোমেইন।

একটি ডোমেইন থেকে অনেক সাবডোমেইন তৈরি করা যায়।

ডোমেইন কিনতে খরচ কত?

একটি টপ লেভেল ডোমেইন ৫০০ থেকে ১৫০০ টাকা খরচ করেই কেনা যায়।

তবে এই ডোমেইন আবার আপনাকে রিনিউ (renew) করতে হবে।

যদি আপনি এক বছরের জন্য ডোমেইন কিনেন তাহলে সেই ডোমেইনের মেয়াদ শেষ (Date expired) হলে আর সেই ডোমেইন ব্যবহার করা যাবে না।

তারপর আপনার domain provider এর সাথে কথা বলে renew করতে হবে।

ডোমেইন রিনিউ এর খরচ ১০০-১৫০০ টাকার মতো লাগবে।

আর আপনি যদি ডোমেইন renew না করেন, তাহলে সেটি অন্য কেউ চাইলে কিনে নিতে পারবে।

আমার শেষ কথা,,

আমি আপনাদের ডোমেইন কি? এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছি। আশা করি সবকিছু সঠিক ভাবে বুঝতে পেরেছেন।

আর কোন জানার থাকলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *